বুধবার, 16 জানুয়ারী 2019

মনিরামপুরে তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্র তারিফ অপহরন আটক অপহরনকারী কিশোর বিল্লাল বন্দুকযুদ্ধে নিহত অপহৃত স্কুল ছাত্র তারিফের বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার প্রতিবাদে অপহরনকারীর বাড়িতে অগ্নিসংযোগ

Written by  বৃহস্পতিবার, 10 জানুয়ারী 2019 02:05
ফিডব্যাক দিন
(0 votes)

মনিরামপুর ঃ যশোরের মনিরামপুরে তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্র তারিফকে অপহরনের দুই দিন পর পুলিশ মঙ্গলবার রাতে কেশবপুর থেকে অপহরনকারী কিশোর বিল্লাল হোসেনকে আটক করে। তার দেওয়া স্বীকারোক্তি মোতাবেক পুলিশ ওই রাতেই অপহৃতকে উদ্ধার করতে গেলে মনিরামপুরের সাতনল ব্রিজের পাশে কথিত বন্দুক যুদ্ধে নিহত হয় অপহরনকারী বিল্লাল হোসেন। এ সময় সেখান থেকে পুলিশ একটি ওয়ানশুটার ও এক রাউন্ড গুলি উদ্ধারের দাবি করেছে। পরে পুলিশ ফেদাইপুর গ্রামের মাঠের মধ্যে ব্রিজের তল থেকে তারিফের বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করে। খুনের শিকার শিশু তারিফ উপজেলার ফেদাইপুর গ্রামের কৃষক সিদ্দিকুর রহমানের ছেলে। আর বন্দুকযুদ্ধে নিহত বিল্লাল হোসেন একই গ্রামের গোলাম মোস্তফার ছেলে। বিল্লাল হোসেন উপজেলার ভরতপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এবার জেএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে অকৃতকার্য হয়। এ দিকে শিশু অপহরন ও হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে পুলিশ ২ জনকে আটক করেছে। পুলিশ বুধবার সকালে নিহত শিশু তারিফ এবং বিল্লালের লাশ ময়না তদন্তের জন্য যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালের মর্গে প্রেরন করে। এ দিকে তারিফ অপহরন ও হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসীর ভয়ে নিহত বিল্লালের পরিবারবর্গ ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে।প্রতিবাদে বুধবার সন্ধ্যার আগে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী নিহত বিল্লালের পরিবারবর্গের বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে। এ তে পাঁচটি ঘর ও মালামাল পুড়ে ভস্মিভূত হয়।  এলাকাবাসী জানায়, উপজেলার ফেদাইপুর গ্রামের কৃষক সিদ্দিকুর রহমানের তিন সন্তানের মধ্যে জমজ তারিফ এবং আরিফ গোপালপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্র। জমজ দুই ছেলে এবং সপ্তম শ্রেণীতে পড়–য়া মেয়ে ও স্ত্রীকে নিয়েই সিদ্দিকের সংসার। সিদ্দিকুর রহমান জানান, গত রোববার বিকেলে ফেদাইপুর খেলারমাঠে তারিফ তার অন্য বন্ধুদের সাথে খেলা করতে গিয়ে আর বাড়িতে ফেরেনি। সোমবার এ ব্যাপারে সিদ্দিকুর রহমান থানায় একটি জিডি করেন। সিদ্দিকুর রহমান জানান, মঙ্গলবার সকালে তার বাড়ির পাশে একটি চিঠি পাওয়া যায়। চিঠিতে লেখা ছিল তারিফকে অপহরণ করা হয়েছে। আর মুক্তিপণ হিসেবে ওই চিঠিতে দাবি করা হয় পাঁচ লাখ টাকা। ওই চিঠিতে একটি মোবাইল নম্বর দেওয়া হয়। অবশ্য ওই মোবাইলফোন ট্রাকিং করে পুলিশ অপহরনকারী হিসেবে বিল্লালকে সনাক্ত করে। পরে সেই নম্বরে যোগাযোগ করলে পাশ^বর্তী কেশবপুর পৌরশহরের একটি বিকাশ এজেন্টের নম্বর দেওয়া হয়। সেই বিকাশ নম্বরে যোগাযোগ করে বিষয়টি এজেন্ট মালিককে অপহরনের ঘটনা খুলে বলা হয়। সিদ্দিকের শ্যালক মাসুম বিল্লাহ জানান, মঙ্গলবার বিকেলে সেই এজেন্টের দোকানে টাকা নিতে আসলে বিল্লালকে কৌঁশলে আটকে রেখে পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। পরে সেখান থেকে পুলিশ তাকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে এক পর্যায়ে তারিফকে অপহরন এবং হত্যার সত্যতা স্বীকার করে বিল্লাল। মনিরামপুর থানার ওসি সহিদুল ইসলাম জানান, বিল্লালের স্বীকারোক্তি মোতাবেক ওই রাতেই তাকে সাথে নিয়ে তারিফের মরদেহ উদ্ধার করতে গেলে মনিরামপুরের সাতনল ব্রিজের পাশে অপহরনকারীচক্রের সাথে বন্দুক যুদ্ধে নিহত হয় বিল্লাল হোসেন। এ সময় সেখান থেকে পুলিশ একটি ওয়ানশুটার ও এক রাউন্ড গুলি উদ্ধারের দাবি করেছে। পরে পুলিশ ফেদাইপুর গ্রামের কবিরের বাড়ির পাশের মাঠের মধ্যে ব্রিজের তল থেকে তারিফের বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করে। তারিফকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। অপহরনের সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে পুলিশ একই গ্রামের আবদুর রাজ্জাকের স্বামী পরিত্যক্তা মেয়ে আম্বিয়া খাতুন লিমা এবং আমিন সরদারের ছেলে মাসুম বিল্লাহকে আটক করে থানা হাজতে জিজ্ঞাসাবাদ করছে। তবে এলাকাবাসী ও পুলিশের ধারনা জমাজমি নিয়ে পূর্ব বিরোধের জের ধরে এ হত্যাকান্ড ঘটতে পারে। ওসি সহিদুল ইসলাম জানান, হত্যাকান্ডের সাথে আরো অনেকেই জড়িত থাকতে পারে। গতকাল রাতে এ রিপোর্ট লেখার সময় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছিল। ভরতপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুল হামিদ জানিয়েছেন বন্দুকযুদ্ধে নিহত বিল্লাল হোসেন এবার তার প্রতিষ্ঠান থেকে জেএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয় অকৃতকার্য হয়। এ দিকে শিশু তারিফ অপহরন ও হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী বুধবার সন্ধ্যার আগে অপহরনকারী নিহত বিল্লালের পরিবারবর্গের বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে।এতে পাঁচটি ঘর ও মালামাল পুড়ে ভস্মিভূত হয়।খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌছানোর আগেই পাঁচটি ঘর ও মালামাল পুড়ে ভস্মিভূত হয় বলে নিশ্চিত করেন মনিরামপুর ফায়ার সার্ভিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির। এর আগে বিল্লাল আটক হবার পর থেকে তার পিতা-মাতাসহ পরিবারের লোকজন বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়ে যায়।

??-??-????

10-01-2019

 

পড়া হয়েছে 2 বার

আপনার মতামত জানান...

আপনার মতামত জানানোর জন্য ধন্যবাদ

সোস্যাল নেটওয়ার্ক

খবরের ভিডিও

অনলাইন জরিপ

দুদক চেয়ারম্যান বলেছেন, দুর্নীতির মাধ্যমে অর্জিত অর্থ জঙ্গিবাদের পেছনে ব্যয় হচ্ছে। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?
  • Votes: (0%)
  • Votes: (0%)
  • Votes: (0%)
Total Votes:
First Vote:
Last Vote:

হাট-বাজার

আঠারো মাইল পশুর হাট - ডুমুরিয়া, খুলনা, বাংলাদেশ

বিস্তারিত দেখুন

পুরনো খবর

প্রধান সম্পাদক : আতিয়ার পারভেজ || সম্পাদক ও প্রকাশক : মনোয়ারা জাহান || ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: শাহীন ইসলাম সাঈদ।
বার্তা, সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ২৫, স্যার ইকবাল রোড, পিকচার প্যালেস মোড়, গোল্ডেন কিং ভবন, খুলনা।
সম্পাদক কর্তৃক দেশ বাংলা প্রিন্টার্স, ৫৮, সিমেট্রি রোড, খুলনা হতে মুদ্রিত ও ১০০, খানজাহান আলী রোড থেকে প্রকাশিত।
যোগাযোগঃ সম্পাদক : ০১৭৫৫-২২৪৪০০, বার্তা কক্ষ : ০১৭৮৭-০৫৫৫৫৫, বিজ্ঞাপন : ০১৭৫৫-১১১৮৮৮
ইমেইল : newsamarekush@gmail.com || ওয়েব: amarekush.com