মঙ্গলবার, 20 নভেম্বর 2018

মনিরামপুরে স্ত্রীর মার্যাদার দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে কলেজ ছাত্রীর অবস্থান: আত্মহননের হুমকি

Written by  রবিবার, 07 অক্টোবার 2018 02:35
ফিডব্যাক দিন
(0 votes)

আশরাফুজ্জামান টিটো ঃ স্ত্রীর মর্যাদার দাবিতে যশোরের মনিরামপুরে প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান নিয়েছে কলেজ ছাত্রী জান্নাত আরা খাতুন শাপলা। শনিবার বিকেল থেকে উপজেলার মাছনা গ্রামে প্রেমিক এহসানুল হক রনির বাড়িতে অবস্থান নিয়েছেন তিনি। অবস্থানের পর শাপলা ঘোষনা দিয়েছেন তাকে স্ত্রীর মর্যাদা না দেওয়া হলে বিষপানে আত্মহত্যা করবে। তবে অবস্থা বেগতিক দেখে বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে প্রেমিক  রনি।   এলাকাবাসী জানায়, উপজেলার মাছনা গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য শরিফুল ইসলামের ছেলে অনার্স শেষ বর্ষের ছাত্র এহসানুল হক রনি এবং কোড়ামারা গ্রামের মশিয়ার রহমানের মেয়ে কলেজ পড়–য়া মেয়ে জান্নাত আরা খাতুন শাপলার মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলে আসছিল। শাপলা জানান, দুই পরিবারের অমতে গত ১৭ জুন রনির সাথে বিয়ে হয় তার। বিয়ের পর শাপলাকে ঘরে না তুলে বিভিন্ন স্থানে রনি তার সাথে রাত কাটান। একপর্যায়ে শাপলা গর্ভবতী হয়ে পড়েন। ৩৮ দিন গর্ভে সন্তান ধারনের পর ঘরে তোলার আশ^াসে শাপলার গর্ভপাত ঘটান রনি। কিন্তু অভিযোগ করা হয়েছে এরপরও তাকে ঘরে না তুলে ছলচাতুরি করতে থাকে রনি। অবশেষে কোন উপায়ান্ত না পেয়ে স্ত্রীর পর্যাদা পেতে শনিবার বিকেলে রনির বাড়িতে অবস্থান নেয় শাপলা।বিষয়টি জানাজানি হবার পর এলাকার উৎস্যুক জনতা ওই বাড়িতে ভিড় করছে। এ দিকে অবস্থা বেগতিক দেখে শনিবার সন্ধ্যার পর বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে স্বামী এহসানুল হক রনি।  সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, শাপলাকে ঘরে না তুলে বাইরে রেখে গেটে তালা দিয়ে রেখেছে রনির পরিবার। ফলে শাপলা কোন উপায়ন্ত না পেয়ে গেটের সামনে(বসে) অবস্থান নিয়েছেন। শাপলা বলেন, শনিবার বিকেলে রনির বাড়িতে আসার সময়ও তার সাথে আমার কথা হয়েছিল। তার আশ^াস পেয়েই আমি এই বাড়িতে এসেছি। বাড়িতে আসার পর রনি পালিয়েছে। তাকে স্ত্রীর মর্যাদা না দেওয়া পর্যন্ত এ বাড়িতে অবস্থান করার দৃঢ়প্রত্যয় ব্যক্ত করে শাপলা জানান, প্রয়োজনে সে আত্মহত্যা করবে। তবুও সে এখান থেকে ফিরে যাবেনা। তবে এহসানুল হক রনি শাপলাকে বিয়ে করার সত্যতা স্বীকার করে মোবাইলফোনে এ প্রতিনিধিকে জানান, শাপলা যা বলছে,তা সবই সত্য। সময় হলে তাকে স্ত্রীর মর্যাদা(ঘরে তুলে নেওয়া) দেয়া হবে। অন্যদিকে রনির পিতা শরিফুল ইসলাম জানান, মেয়ের বাবা-মাকে খবর দেওয়া হয়েছে। তারা আসলে একটা সিদ্ধান্ত নেওয়া যাবে।মনিরামপুর থানার ওসি (তদন্ত) এনামুল হক জানান, এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পড়া হয়েছে 9 বার

আপনার মতামত জানান...

আপনার মতামত জানানোর জন্য ধন্যবাদ

প্রধান সম্পাদক : আতিয়ার পারভেজ || সম্পাদক ও প্রকাশক : মনোয়ারা জাহান || ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: শাহীন ইসলাম সাঈদ।
বার্তা, সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ২৫, স্যার ইকবাল রোড, পিকচার প্যালেস মোড়, গোল্ডেন কিং ভবন, খুলনা।
সম্পাদক কর্তৃক দেশ বাংলা প্রিন্টার্স, ৫৮, সিমেট্রি রোড, খুলনা হতে মুদ্রিত ও ১০০, খানজাহান আলী রোড থেকে প্রকাশিত।
যোগাযোগঃ সম্পাদক : ০১৭৫৫-২২৪৪০০, বার্তা কক্ষ : ০১৭৮৭-০৫৫৫৫৫, বিজ্ঞাপন : ০১৭৫৫-১১১৮৮৮
ইমেইল : newsamarekush@gmail.com || ওয়েব: amarekush.com