মঙ্গলবার, 20 নভেম্বর 2018

সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধায় সিক্ত বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু ফাদার রিগন রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় মোংলায় সমাহিত

Written by  সোমবার, 22 অক্টোবার 2018 00:41
ফিডব্যাক দিন
(0 votes)

কাজী ইয়াছিন ঃ বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু ইতালির নাগরিক ফাদার মারিনো রিগনকে বাগেরহাটের মোংলা উপজেলার শেহলাবুনিয়ায় সেন্টপল্স গীর্জার পাশে সমাহিত করা হয়েছে। ফাদার রিগনের অন্তিম ইচ্ছা অনুযায়ী রবিবার ভোরে তাঁর মরদেহ ইতালি থেকে প্রথমে বাংলাদেশে আনা হয়। এরপর রবিবার সকাল ৯টা ৪৮মিনিটে রিগনের কফিনবাহী হেলিকপ্টারটি মোংলার শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়ামে অবতরন করে। খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক ও বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক তপন কুমার বিশ^াস ফাদার রিগানের কফিনটি গ্রহন করেন। পরে মোংলা উপজেলা পরিষদের মাঠে ফাদার মারিনো রিগনের কফিনে সর্বস্তরের হাজার-হাজার মানুষ শেষ শ্রদ্ধা জানায়। এরপর সেখানে রিগনকে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়। দুপুরে ফাদার মারিনো রিগনের প্রতিষ্ঠিত সেন্টপল্স উচ্চ বিদ্যালয় এবং সেন্ট পল্স হাসপাতালে মরদেহ নেয়া হলে শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীসহ হাজারো অনুরাগীরা কফিনে শেষ শ্রদ্ধা জানান। গতকাল রবিবার বিকালে ধর্মীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষে সেন্টপল্স গীর্জার পাশে রাস্ট্রীয় মর্যাদায় ফাদার মারিনো রিগনকে সমাধিস্থ করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন তাঁর কফিনের সাথে ঢাকা থেকে আসা ইটালির রাস্ট্রদূত মিষ্টার মারিও পালমা, ইটালিতে বাংলাদেশের দূতাবাসের কর্মকর্তা ইকবাল আহমেদ, অবসরপ্রাপ্ত লে. কর্নেল বীরপ্রতিক সাজ্জাত আলী জহির, সচিব নমিতা হালদার, খুলনা সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের দক্ষিণ এশিয়া অনুবিভাগ দুইয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব সুডানা ইকরাম চৌধুরী, পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের চীফ প্রোটকল অফিসার মোনতাসির, ঢাকার ফার্মগেট চার্চের ফাদার মাই লিলিয়ান, মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রনালয়ের যুগ্ম সচিব জহিরুল ইসলাম, উপ সচিব আসাদুল ইসলাম, বিমান বাহিনীর উইং কমান্ডার সুলাইমান হোসেন, বাগেরহাট জেলা প্রশাসক তপন কুমার বিশ^াস ও পুলিশ সুপার পংকজ চন্দ্র রায়সহ কয়েক হাজার ভক্ত অনুরাগী। ফাদার মারিনো রিগন ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় অসুস্থ ও যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের আশ্রয় ও সেবা প্রদানের পাশাপাশি সরাসরি মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন। মুক্তিযুদ্ধে অসামান্য অবদান রাখার স্বীকৃতি স্বরূপ ২০০৯ সালে সরকার তাঁকে ঋৎরবহফং ড়ভ খরনবৎধঃরড়হ ডধৎ ঐড়হড়ঁৎ পদক প্রদান ও বাংলাদেশের সম্মানসূচক নাগরিকত্ব দেয়া হয়। ফাদার রিগন মোংলায় থাকা অবস্থায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে চলাফেরার শক্তি হারিয়ে ফেলেন। এরপর ২০১৪ সালের ৭ ফেব্রুয়ারী তার ভাই-বোন  এসে তাঁকে ইতালিতে নিয়ে যান। ইতালিতে মৃত্যু হলে তার লাশ বাগেরহাটের মোংলার সেন্ট পল্স গীর্জার পাশে সমাহিত করতে হবে এই শর্তে তিনি স্বজনদের সাথে ইটালি যেতে রাজী হন। গত বছরের ২০ অক্টোবর ইতালির ভিচেঞ্চায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধৃ ফাদার রিগন। ইতালির নাগরিক ফাদার রিগন ১৯২৫ সারের ৫ ফেব্রুয়ারী সেদেশের ভিচেঞ্চায় জন্মগ্রহন করেন। মাত্র ২৮ বছর বয়সে খৃষ্ট্রধর্ম প্রচারে ১৯৫৩ সালের ৭ জানুয়ারী তদানিন্তন পূর্ব পাকিস্তানের ঢাকায় আসেন। মুক্তিযুদ্ধের সময় তিনি গোপালগঞ্জের বানিয়ারচর গির্জায় ছিলেন। সেসময়ে মুক্তিযোদ্ধাদের সহায়তাসহ অসুস্থ ও যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের আশ্রয় ও সেবা প্রদানের পাশাপশি সরাসরি মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন। দেশের বিভিন্ন স্থান ঘুরে দেশ স্বাধীনের পর তিনি মোংলার শেহলাবুনিয়ায় স্থায়ী আবাস গড়ে তোলেন। দীর্ঘ সময়ে বাগেরহাটের মোংলায় অবস্থানকালে ফাদার মারিনো রিগন জেলার অন্যতম শ্রেষ্ঠ বিদ্যাপীঠ সেন্টপল্স উচ্চ বিদ্যালয়সহ ১৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সেন্টপল্স হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করেন। নারীদের কর্মসংস্থানের জন্য প্রতিষ্ঠা করেন সেন্ট পল্স সেলাই কেন্দ্র। যেখান থেকে নারীদের হাতে সেলাই করা নক্সীকাঁথা এখন বিদেশে রপ্তানি করা হয়। বাগেরহাটের আমজনতার হৃদয় জয় করে নেয়া ফাদার মারিনো রিগন একই সাথে মোংলায় বসে ইতালিয়ান ভাষায় অনুবাদ করেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গীতাঞ্জলিসহ ৪০টি কাব্যগ্রন্থ, লালন সাঁইয়ের তিনশত পঞ্চাশটি গান, জসীম উদ্দীনের নক্সীকাঁথার মাঠ, সোজন বাদিয়ার ঘাট ছাড়াও এদেশের খ্যাতিমান কবিদের অসংখ্য কবিতা।

২২-১০-২০১৮

22-10-2018

 

পড়া হয়েছে 12 বার

আপনার মতামত জানান...

আপনার মতামত জানানোর জন্য ধন্যবাদ

প্রধান সম্পাদক : আতিয়ার পারভেজ || সম্পাদক ও প্রকাশক : মনোয়ারা জাহান || ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: শাহীন ইসলাম সাঈদ।
বার্তা, সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ২৫, স্যার ইকবাল রোড, পিকচার প্যালেস মোড়, গোল্ডেন কিং ভবন, খুলনা।
সম্পাদক কর্তৃক দেশ বাংলা প্রিন্টার্স, ৫৮, সিমেট্রি রোড, খুলনা হতে মুদ্রিত ও ১০০, খানজাহান আলী রোড থেকে প্রকাশিত।
যোগাযোগঃ সম্পাদক : ০১৭৫৫-২২৪৪০০, বার্তা কক্ষ : ০১৭৮৭-০৫৫৫৫৫, বিজ্ঞাপন : ০১৭৫৫-১১১৮৮৮
ইমেইল : newsamarekush@gmail.com || ওয়েব: amarekush.com