শুক্রবার, 14 ডিসেম্বর 2018

নওয়াপাড়ায় নৌ - যান শ্রমিকের কর্ম বিরতি শুরু অব্যাহত থাকলে মালামালের দাম বাড়তে পারে

Written by  বুধবার, 05 ডিসেম্বর 2018 01:57
ফিডব্যাক দিন
(0 votes)

নওয়াপাড়া প্রতিনিধি ঃ নওয়াপাড়া নদী বন্দরে অবস্থানকৃত সকল প্রকার নৌ -যানে মালামাল উঠা-নামা বন্ধ রেখে কর্ম বিরতি পালন করছে ৩শ ৩৬টি নৌ-যান শ্রমিক কর্মচারীরা। গত শুক্রবার(৩০-১১-১৮) একটি জাহাজে ডাকাতি সংঘটিত হওয়ার পরে বাংলাদেশ নৌ-যান ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সিন্ধান্ত মোতাবেক মঙ্গবার(৪-১২-১৮) থেকে এ কর্ম বিরতি শুরু হয়। দাবি না মানলে পর্যায়ক্রমে খুলনা ও মংলা পোর্ট সহ সকল বন্দরে একযোগে কর্ম বিরতি পালনের ঘোষনা দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ নৌ-যান শ্রমিক ফেডারেশনের নওয়াপাড়া শাখার সচিব কর্তৃক এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি মারফতে জানা গেছে, গত ৩০ নভেম্বর সন্ধ্যায় নওয়াপাড়ার ভাঙ্গাগেট এলাকায় অবস্থিত পরশ অটো রাইস মিলের নিজস্ব ঘাটে অবস্থানরত এম ভি রাইসা সিমান্ত-২ জাহাজে ডাকাতি সংঘটিত হয়। ডাকাতেরা জাহাজের একজন শ্রমিকে ছুরিকাহত  করে নগদ টাকা মোবাইল ফোন সহ মালামাল নিয়ে যায়। অব্যাহত ভাবে  এ ধরনের ঘটনা ঘটছে। এ ছাড়া অপরিকল্পিত ভাবে নদী ড্রেজিং করায় জাহাজ চলাচলে বিঘœ, নদী দখলের কারনে জলাশয় সংর্কীন্ন হওয়া, অবৈধ ভাবে লাইটারেজ ইউনিয়ানের নামে চাাঁদা বাজি, ঘাটে জেটি ও পানি ব্যবস্থাপনা করে জাহাজ সঠিক জায়গায় ভেড়ানো, ঘাটে জায়গার সংকুলোন না হওয়ায় নদীর ওপর পাড়ে জাহাজ ভেড়ালে হাজার টাকা চাদা প্রদান, ঘাটে লোড আন লোড কাজে সিড়ির ব্যবস্থা করা, খুলানা থেকে বন্দর কর্তৃপক্ষের সিরিয়াল নির্ধারণ, অভয়নগর থানা ভবনের বিপরিত পাশে নদীর মধ্যে নিমর্জিত একটি মন্দির অপসারণ,নৌ-নিরাপত্তা জোরদার সহ ১৩ দফা দাবি আদায়ের জন্য এ কর্ম বিরতি পালন হচ্ছে। বাংলাদেশ নৌ-যান শ্রমিক ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সভাপতি বাহারুল ইসলাম বাহার জানান, আগামী তিন দিনের মধ্যে এ সব দাবি মানা না হলে খুলনা নৌবন্দর ও মংলা সমুদ্র বন্দর সহ দেশের সকল বন্দরে এক যোগে কর্ম বিরতি পালন করা হবে। এদিকে কর্ম বিরতি চলা কালে চার শতাধিক ঘাটের প্রায় ১৫ হাজার শ্রমিক বেকার হয়ে পড়েছে। মোকামে কেনা বেচায় ভাটা পড়েছে। নওয়াপাড়া মোকামের ব্যবসায়ি নেতা শাহজালাল হোসেন জানান , এভাবে কয়েক দিন চলতে থাকলে দেশে আমনানি কৃত পন্যের দাম বেড়ে যেতে পারে। অভয়নগর থানার অফিসার ইনচার্য জানিয়েছেন, জাহাজী শ্রমিকরা আমার কাছে কোন লিখিত অভিযোগ করেনি। ঘনটনা শুনে আমরা জাহাজী শ্রমিকদের নিরাপত্তা জোরদার করেছি। ঘাটে ডাকাতি সংঘটিত হয় নাই। একটি ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার সাথে জড়িত একজন ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করেছি। এদিকে কর্ম বিরতির চলাকালে মঙ্গলবার বিকালে সংগঠনের নওয়াপাড়া শাখা অফিস মিলনায়তনে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ লঞ্চ লেবার এসোসিয়েশনের খুলনা শাখার যুগ্ম সম্পাদক মাষ্টার ফারুক হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রীয় নেতা বাহারুল ইসলাম বাহার, নওয়াপাড়া শাখার সদস্য সচিব নিয়ামুল ইসলাম রিকো,মাষ্টার হাসান আলী, জামাল হোসেন প্রমুখ।

০৫-১২-২০১৮

05-12-2018

 

পড়া হয়েছে 0 বার

আপনার মতামত জানান...

আপনার মতামত জানানোর জন্য ধন্যবাদ

প্রধান সম্পাদক : আতিয়ার পারভেজ || সম্পাদক ও প্রকাশক : মনোয়ারা জাহান || ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: শাহীন ইসলাম সাঈদ।
বার্তা, সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ২৫, স্যার ইকবাল রোড, পিকচার প্যালেস মোড়, গোল্ডেন কিং ভবন, খুলনা।
সম্পাদক কর্তৃক দেশ বাংলা প্রিন্টার্স, ৫৮, সিমেট্রি রোড, খুলনা হতে মুদ্রিত ও ১০০, খানজাহান আলী রোড থেকে প্রকাশিত।
যোগাযোগঃ সম্পাদক : ০১৭৫৫-২২৪৪০০, বার্তা কক্ষ : ০১৭৮৭-০৫৫৫৫৫, বিজ্ঞাপন : ০১৭৫৫-১১১৮৮৮
ইমেইল : newsamarekush@gmail.com || ওয়েব: amarekush.com