বুধবার, 16 জানুয়ারী 2019

দেশীয় কাঁচামাল নির্ভর রফতানি পণ্য উৎপাদনের আহ্বান রাষ্ট্রপতির

Written by  বৃহস্পতিবার, 10 জানুয়ারী 2019 02:09
ফিডব্যাক দিন
(0 votes)

ঢাকা অফিস :  অধিক মূল্যসংযোজিত পণ্য উৎপাদনের ক্ষেত্রে দেশীয় কাঁচামাল নির্ভর রফতানি পণ্য উৎপাদনে ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ। গতকাল বুধবার বিকেলে ২৪তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ আহ্বান জানান। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। এ ক্ষেত্রে পাটভিত্তিক বহুমুখী পণ্য, খাদ্যসহ অ্যাগ্রোপ্রসেস পণ্য, হিমায়িত চিংড়ি, আম, আলু ইত্যাদি পণ্যের রফতানি বাড়াতে তাগিদ দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি। তিনি বলেন, এ বছর কৃষি ও কৃষিজাত পণ্যকে ‘প্রোডাক্ট অব দ্য ইয়ার’ ঘোষণা করা হয়েছে। আমি মনে করি এর ফলে কৃষিজাত পণ্য উৎপাদন ও রফতানি বৃদ্ধি পাবে। আবদুল হামিদ বলেন, প্রতি বছর হাজার হাজার ছেলে-মেয়ে উচ্চশিক্ষা নিয়ে বের হচ্ছে। এসব মেধাবী ছেলে-মেয়েদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা খুবই জরুরি। এজন্য সরকারের পাশাপাশি আপনাদেরও এগিয়ে আসতে হবে। বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থাসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ফোরামে সুবিধা আদায় করতে আমাদের জ্ঞানকৌশল ও দক্ষতা বাড়াতে হবে। এ লক্ষ্যে বিভিন্ন ব্যবসায়ী সমিতি ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের আরও বেশি ফলপ্রসূ অবদান রাখতে হবে। নতুন নতুন উদ্ভাবনের ফলে ব্যবসায়ের ধরণ প্রকৃতি দ্রুত পাল্টাচ্ছে। তাই আপনাদেরও নতুন নতুন ধারণা নিয়ে এগিয়ে আসতে তুলনামূলক সুবিধা ও স্থানীয় সম্ভাবনাকে কাজে লাগিয়ে নতুন শিল্প কারখান গড়ে তুলতে হবে। তাহলেই কর্মসংস্থান ও উৎপাদনে এগিয়ে যাবে। দেশের ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিনিয়োগ করতে দেশি-বিদেশিদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বলেন, ব্যবসায়ীদের নতুন নতুন ধারণা নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে। নতুন নতুন পণ্যের বাজার সৃষ্টি করতে হবে। তবেই বাংলাদেশকে সমৃদ্ধশালী দেশে পরিণত করা সম্ভব। মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হলে অনেক দেশে বাংলাদেশি পণ্যের অগ্রাধিকারমূলক প্রবেশ সুবিধা থাকবে না উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এ চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় ব্যবসায়ীদের সক্ষমতা অর্জনের আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ২০২১ সাল নাগাদ আমরা মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হবার লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছি। তখন স্বল্পোন্নত দেশসমূহের জন্য প্রবর্তিত অগ্রাধিকারমূলক বাজার প্রবেশাধিকারের সুবিধা আমাদের থাকবে না। তাছাড়া বিভিন্ন অশুল্ক বাধাকেও অতিক্রম করার চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে। এরূপ পরিস্থিতিতে উৎপাদক ও রপ্তানিকারকদের তীব্র প্রতিযোগিতায় টিকে থাকার সামর্থ্য ও সক্ষমতা অর্জন করতে হবে। বাংলাদেশি পণ্যের ব্রান্ডিং করার ওপর জোর দিয়ে আবদুল হামিদ বলেন, বর্তমান প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বে প্রতিযোগি দেশসমূহের সাথে ব্যবসা বাণিজ্যে টিকে থাকতে হলে অনেক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে। এজন্য দক্ষতা অর্জনের পাশাপাশি বাণিজ্য সম্প্রসারণ, নতুন বাজার সৃষ্টি ও পণ্যের বহুমুখীকরণেও মনোযোগী হতে হবে। উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধির সাথে সাথে পণ্যের মানোন্নয়ন, পণ্যের ব্র্যান্ডিং ও আকর্ষণীয় করতে উদ্যোগী হতে হবে। নিজস্ব ব্র্যান্ডে রপ্তানি করা সম্ভব হলে রপ্তানির পরিমাণসহ এ খাত হতে প্রাপ্ত সুবিধা বহুলাংশে বৃদ্ধি পাবে। রপ্তানিত পণ্যের বহুমুখীকরণের ওপর জোর দিয়ে রাষ্ট্রপতি বলেন, একটি উন্নত ও টেকসই অর্থনীতি বিনির্মাণে বাণিজ্য সম্প্রসারণের বিকল্প নেই। রপ্তানি ঝুড়িতে অনেক পণ্য সংযোজিত হলেও এখনো আমাদের রপ্তানির সিংহভাগ নির্ভর করছে প্রধান কয়েকটি পণ্যের উপর। এ থেকে বেরিয়ে আসার জন্য সরকারি ও বেসরকারি খাতের সমন্বিত প্রয়াস প্রয়োজন। সপ্তম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনায় পণ্য ও বাজার বহুমূখীকরণে বিশেষ গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। অধিক মূল্য সংযোজিত পণ্য উৎপাদনের ক্ষেত্রে দেশজ কাঁচামাল নির্ভর রপ্তানি পণ্য উৎপাদনে আপনাদেরকে মনোনিবেশ করার অনুরোধ জানাচ্ছি। এক্ষেত্রে পাটভিত্তিক বহুমুখী পণ্য, খাদ্যসহ এগ্রো-প্রসেসড পণ্য, হিমায়িত চিংড়ি, আম, আলু ইত্যাদি পণ্যের রপ্তানি বৃদ্ধির উদ্যোগ গ্রহণের আহ্বান জানাচ্ছি। শ্রমঘন আইসিটি খাতকে শুধুমাত্র দেশের উন্নয়নের মাধ্যম হিসেবে বিবেচনা না করে আইসিটি সংশ্লিষ্ট সেবা খাতের রপ্তানি বাড়াতে আমি উদ্যোক্তাবৃন্দকে এগিয়ে আসার অনুরোধ জানাচ্ছি। ব্যবসায় নতুন ধারণা নিয়ে এগিয়ে আসতে ব্যবসায়ীদের আহ্বান জানিয়েছে রাষ্ট্রপতি বলেন, নতুন নতুন উদ্ভাবনের ফলে ব্যবসায়ের ধরণ ও প্রকৃতি-দ্রুত পাল্টাচ্ছে। তাই আপনাদেরকে নতুন নতুন ধারণা নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে। তুলনামূলক সুবিধা ও স্থানীয় সম্ভাবনাকে কাজে লাগিয়ে নতুন শিল্পকারখানা গড়ে তুলতে হবে। তাহলেই কর্মসংস্থান উৎপাদন ও বিনিয়োগ বাড়াবে। দেশ এগিয়ে যাবে। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। বক্তব্য রাখেন বাণিজ্য সচিব মফিজুল ইসলাম, এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন এবং রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর ভাইস চেয়ারম্যান বিজয় ভট্টাচার্য্য। পরে রাষ্ট্রপতি বাণিজ্য মেলা প্রাঙ্গণে বিভিন্ন স্টল ঘুরে দেখেন।

??-??-????

10-01-2019

 

পড়া হয়েছে 5 বার

আপনার মতামত জানান...

আপনার মতামত জানানোর জন্য ধন্যবাদ

প্রধান সম্পাদক : আতিয়ার পারভেজ || সম্পাদক ও প্রকাশক : মনোয়ারা জাহান || ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: শাহীন ইসলাম সাঈদ।
বার্তা, সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ২৫, স্যার ইকবাল রোড, পিকচার প্যালেস মোড়, গোল্ডেন কিং ভবন, খুলনা।
সম্পাদক কর্তৃক দেশ বাংলা প্রিন্টার্স, ৫৮, সিমেট্রি রোড, খুলনা হতে মুদ্রিত ও ১০০, খানজাহান আলী রোড থেকে প্রকাশিত।
যোগাযোগঃ সম্পাদক : ০১৭৫৫-২২৪৪০০, বার্তা কক্ষ : ০১৭৮৭-০৫৫৫৫৫, বিজ্ঞাপন : ০১৭৫৫-১১১৮৮৮
ইমেইল : newsamarekush@gmail.com || ওয়েব: amarekush.com