রবিবার, 21 এপ্রিল 2019

গোপালগঞ্জের ৫ উপজেলায় বিজয়ী হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা

Written by  মঙ্গলবার, 26 মার্চ 2019 00:46
ফিডব্যাক দিন
(0 votes)

মোহাম্মদ মাহমুদ কবির আলী ঃ গোপালগঞ্জ জেলার ৫ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ফলাফল ঘোষনা করা হয়েছে রোববার গভীর রাতে। সদর উপজেলার নির্বাচনে বর্তমান চেয়ারম্যান শেখ লুৎফর রহমান বাচ্চু মাত্র ৩০ ভোটে হারিয়েছেন তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দি মো: মাহামুদ হোসেন মোল্ল্যা দিপুকে। দুই জনেই স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে লড়েছেন।  শেখ লুৎফর রহমান বাচ্চু পেয়েছেন ৩৭,৬৫০ ভোট এবং মো: মাহামুদ হোসেন দিপু পেয়েছেন ৩৭,৬২০ ভোট। ৩৮,৯৫৭ ভোট পেয়ে ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন নিতীশ রায়। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দি তাসবিরুল হুদা বাবু পেয়েছেন  ৩৪,২৪৭ ভোট। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন নিরুন্নাহার বেগম। তিনি পেয়েছেন ৩৭,০২০ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দি আমেনা  খানম পেয়েছেন ২৮,৮৩২ ভোট। উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মোট ১ লাখ ১০ হাজার ৭ শত ৮৯ জন ভোটার ভোট দিয়েছেন । গতকাল রোববার ইভিএম দ্বারা ভোট গ্রহন করা  হলেও অবৈধ বা নষ্ট হয়েছে ২০৪ টি ভোট। মোট ১ লাখ ১০ হাজার ৫ শত ৮৫ টি ভোট বৈধ হয়েছে বলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার মো: সাদিুকর রহমান খান এবং সদর উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার হারুন অর রশীদ স্বাক্ষরিত ফলাফলের ঘোষনা থেকে এসব তথ্য জানা গেছে। ফলাফল ঘোষনাকে কেন্দ্র করে রোবাবার রাত নয়টার দিকে উত্তেজিত জনতা উপজেলা পরিষদে স্থাপিত কন্ট্রোল রুমে হামলা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় গোলাগুলির শব্দ শোনা গেছে। ফলাফল ঘোষনায় কারসাজির আশ্রয় নেয়া হচ্ছে এমন খবর চাউর হওয়ার পরেই সদর উপজেলা পরিষদে স্থাপিত নির্বাচনী ফলাফল সংগ্রহ ও পরিবেশন কেন্দ্রে হামলা ও ভাংচুর চলে। পরে পুলিশসহ নির্বাচনী দায়িত্ব পালনকারী ষ্ট্রাইকিং ফোর্স এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নেয়। পরে গভীর রাতে কর্তৃপক্ষ ফলাফল ঘোষনা করেছে। এছাড়াও কাশিয়ানী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী সুব্রত ঠাকুর হিল্টু ২২,৪১৬ ভোট পেয়ে বেরসকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দি প্রার্থী মোক্তার হোসেন পেয়েছেন ২১,৭১৬ ভোট। এ উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন খাজা নেওয়াজ। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন সোহাগি রহমান মুক্তা। কোটালীপাড়ায় বিমল কৃষ্ণ বিশ্বাস স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন ৬০,২১১ ভোট পেয়ে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দি মুজিবুর রহমান হাওলাদার পেয়েছেন ৩৭,১৪১ ভোট। ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন যথাক্রমে খালেক হাওলাদার এবং লক্ষি রানী  সরকার। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে টুঙ্গিপাড়ায় নির্বাচিত হয়েছেন সোলায়মান বিশ্বাস। তিনি পেয়েছেন ২৭,০৬০ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দি বাবুল শেখ পেয়েছেন ২৭,০৩২ ভোট। এখান থেকে ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন অসীম কুমার বিশ্বাস এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হয়েছেন সোফেদা আক্তার জোনাকী। মুকসুদপুরে নির্বাচিত হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী কাবির মিয়া। তিনি পেয়েছেন ৭০,৬১৭ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দি এমএম মহিউদ্দিন মুক্ত মুন্সি পেয়েছেন ৪২,৯৯৭ ভোট। এ উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন রবিউল ইসলাম এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন তাপসি বিশ্বাস। উল্লেখ্য এবারের নির্বাচনে গোপালগঞ্জ জেলার কোন উপজেলায় আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়ন দেয় নাই।

পড়া হয়েছে 3 বার

আপনার মতামত জানান...

আপনার মতামত জানানোর জন্য ধন্যবাদ

প্রধান সম্পাদক : আতিয়ার পারভেজ || সম্পাদক ও প্রকাশক : মনোয়ারা জাহান || ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: শাহীন ইসলাম সাঈদ।
বার্তা, সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ২৫, স্যার ইকবাল রোড, পিকচার প্যালেস মোড়, গোল্ডেন কিং ভবন, খুলনা।
সম্পাদক কর্তৃক দেশ বাংলা প্রিন্টার্স, ৫৮, সিমেট্রি রোড, খুলনা হতে মুদ্রিত ও ১০০, খানজাহান আলী রোড থেকে প্রকাশিত।
যোগাযোগঃ সম্পাদক : ০১৭৫৫-২২৪৪০০, বার্তা কক্ষ : ০১৭৮৭-০৫৫৫৫৫, বিজ্ঞাপন : ০১৭৫৫-১১১৮৮৮
ইমেইল : newsamarekush@gmail.com || ওয়েব: amarekush.com