রবিবার, 21 এপ্রিল 2019

শারীরিক অবস্থা ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় এখনই সিঙ্গাপুরে পাঠানো যাচ্ছে না নুসরাতকে

Written by  বুধবার, 10 এপ্রিল 2019 00:52
ফিডব্যাক দিন
(0 votes)

ঢাকা অফিস : সারা দেহে পোড়া ক্ষত নিয়ে লাইফসাপোর্টে থাকা ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির শারীরিক অবস্থা ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় এখনই সিঙ্গাপুরে পাঠানো সম্ভব নয় বলে মত দিয়েছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের চিকিৎসকরা। বার্ন ইউনিটের সমন্বয়ক সামন্ত লাল সেন গতকাল মঙ্গলবার সকালে সাংবাদিকদের বলেন, সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসকদের সঙ্গে তারা নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন। গতকাল মঙ্গলবার সকালেও ভিডিও কনফারেন্সে কথা হয়েছে। তারা বলেছে, রোগীর যে কনডিশন, তাতে পাঁচ ঘণ্টা ফ্লাই করা সম্ভব নয়। তারা আমাদের কিছু সাজেশন দিয়েছে, কী কী করা লাগবে। আমরা সেগুলো করছি। সিঙ্গাপুরের চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী সব করা হচ্ছে জানিয়ে সামন্ত লাল বলেন, প্রতিদিন আমরা জানাব রিপোর্টেগুলো। অবস্থার উন্নতি হলে চিন্তা করব ট্রান্সফার করার। ১৭ এপ্রিল সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালের একটি চিকিৎসক দল ঢাকা আসবে। তখন তারা নুসরাতকে দেখে মতামত দিতে পারবে বলে জানান সামন্ত লাল সেন। ফেনীর সোনাগাজীর মেয়ে নুসরাত জাহান রাফি এ বছর আলিম পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছিলেন। শ্লীলতাহানির মামলা তুলে না নেওয়ায় সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলা তার অনুসারীদের দিয়ে নুসরাতকে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা চালান বলে মেয়েটির পরিবারের অভিযোগ। গত শনিবার সকালে ওই মাদ্রাসা কেন্দ্রে আরবি প্রথম পত্রের পরীক্ষা দিতে যান নুসরাত। তাকে ছাদে ডেকে নিয়ে বোরখা পরা চার নারী মামলা তুলে নিতে চাপ দেয়। তাতে রাজি না হওয়ায় ওড়না দিয়ে হাত বেঁধে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। অগ্নিদগ্ধ নুসরাতকে প্রথমে সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখান থেকে ফেনী সদর হাসাপাতালে এবং পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শরীরের ৮০ শতাংশ পুড়ে যাওয়া নুসরাতের অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় গত সোমবার তাকে নেওয়া হয়লাইফ সাপোর্টে। গত সোমবার বিকালে তাকে দেখতে বার্ন ইউনিটে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ও আওয়ামী লীগের উপদপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া সাংবাদিকদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী তাকে সিঙ্গাপুর পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন এবং সিঙ্গাপুরের পাঠানোসহ চিকিৎসার সব খরচ সরকার বহন করবে। ডা. সামন্ত লাল গত সোমবার সাংবাদিকদের বলেন, নুসরাতকে সিঙ্গাপুরে পাঠানোর বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তার কথা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী আমাকে বলেছেন, তাকে যদি সিঙ্গাপুরে পাঠানোর মত হয়, তাহলে যেন দ্রুত পাঠানো হয়। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ পাওয়ার পর আমি সিঙ্গাপুরে তার চিকিৎসার কাগজপত্র পাঠিয়েছি। তারা রেসপন্স করলে আমরা দ্রুত পাঠিয়ে দেব। অস্ত্রোপচার সম্পন্ন: গতকাল মঙ্গলবার দগ্ধ ছাত্রীর অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়েছে। সকাল ১০টার একটু পরে অস্ত্রোপচার শুরু হয়ে দুপুর সাড়ে ১২টায় শেষ হয়। ওই ছাত্রীর উন্নত চিকিৎসার জন্য গঠিত আট সদস্যের মেডিকেল বোর্ডের প্রধান জাতীয় শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটের প্রকল্প পরিচালক প্রফেসর ডা. আবুল কালাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, যেহেতু সে পুড়ে গেছে। তাই তার শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছে। তাই সে যাতে স্বাভাবিকভাবে শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে পারে সেজন্য এই অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। আবুল কালাম জানান, এর আগে বোর্ড সিদ্ধান্ত নিয়েছিল তার একটি অস্ত্রোপচার করা হবে। সেই সিদ্ধান্ত সিঙ্গাপুরের চিকিৎসকদের জানালে তারাও একমত পোষণ করেন। উভয় সিদ্ধান্তক্রমে তার অস্ত্রোপচার করা হয়। এখন সে আগের থেকে একটু ভালো আছে। বর্তমানে সে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের আইসিইউতে লাইফ সাপোর্টে আছে। তিনি জানান, অস্ত্রোপচারের বিভিন্ন কাগজপত্র ও অন্যান্য কাগজপত্র আবার সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হবে। এ কাগজপত্র নিয়ে তাদের সঙ্গে বিকেলে আবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কথা হবে। এদিকে, নুসরাত জাহান রাফির চিকিৎসার জন্য দিন-রাত কাজ করছেন বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ (হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন। তিনি বলেন, আমরা ওর (নুসরাত) জন্য দিনরাত কাজ করছি। আপনারা সবাই দোয়া করবেন। মহান সৃষ্টিকর্তার ইচ্ছে থাকলে অনেক কিছুই সম্ভব হয়ে যায়। আমাদের প্রত্যাশা সে ভালো হবেই। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে দগ্ধ মাদ্রাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির চিকিৎসার বিষয়ে জানতে চাইলে এসব কথা বলেন ঢামেক পরিচালক। ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন বলেন, আমাদের যদি আরো কিছু করার থাকে আমরা তাও করবো। যেহেতু মেয়েটিকে দেশের বাইরে নেওয়া যাচ্ছে না তাই আমরা তার পরীক্ষা-নিরীক্ষার রিপোর্টগুলো সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালকে জানিয়েছি। তাদের রিপোর্টগুলো পাঠাচ্ছি, তারাও ফিডব্যাক দিচ্ছে। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন ওই ছাত্রীর উন্নত চিকিৎসার জন্য গঠিত আট সদস্যের মেডিকেল বোর্ডের প্রধান শেখ হাসিনা ন্যাশনাল বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের প্রকল্প পরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম।

??-??-????

10-04-2019

 

পড়া হয়েছে 14 বার

আপনার মতামত জানান...

আপনার মতামত জানানোর জন্য ধন্যবাদ

প্রধান সম্পাদক : আতিয়ার পারভেজ || সম্পাদক ও প্রকাশক : মনোয়ারা জাহান || ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: শাহীন ইসলাম সাঈদ।
বার্তা, সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ২৫, স্যার ইকবাল রোড, পিকচার প্যালেস মোড়, গোল্ডেন কিং ভবন, খুলনা।
সম্পাদক কর্তৃক দেশ বাংলা প্রিন্টার্স, ৫৮, সিমেট্রি রোড, খুলনা হতে মুদ্রিত ও ১০০, খানজাহান আলী রোড থেকে প্রকাশিত।
যোগাযোগঃ সম্পাদক : ০১৭৫৫-২২৪৪০০, বার্তা কক্ষ : ০১৭৮৭-০৫৫৫৫৫, বিজ্ঞাপন : ০১৭৫৫-১১১৮৮৮
ইমেইল : newsamarekush@gmail.com || ওয়েব: amarekush.com