মঙ্গলবার, 20 নভেম্বর 2018

হাসপাতাল থেকে কারাগারে খালেদা জিয়া

Written by  শুক্রবার, 09 নভেম্বর 2018 00:57
ফিডব্যাক দিন
(0 votes)

ঢাকা অফিস : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে রেখে এক মাস চিকিৎসা দেওয়ার পর বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ফিরিয়ে নেওয়া হয়েছে নাজিমুদ্দিন রোডের পুরানো কেন্দ্রীয় কারাগারে। সেখানে ঢাকার নবম বিশেষ জজ আদালতের অস্থায়ী এজলাসে খালেদা জিয়ার উপস্থিতিতে নাইকো দুর্নীতি মামলার অভিযোগ গঠনের শুনানি শুরু হয়েছে দীর্ঘ দিন পর। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা পৌনে ১২টার দিকে খালেদাকে হাসপাতাল থেকে কারাগারে নিয়ে যাওয়ার পর হুইল চেয়ারে করে এজলাসে হাজির করা হয়। শুনানির প্রথম দিন এ মামলার অন্যতম আসামি মওদুদ আহমদ নিজেই তার অভিযোগ গঠনের শুনানি শুরু করেন। পরে আদালত ১৪ নভেম্বর মামলার পরবর্তী তারিখ রেখে শুনানি মুলতবি করেন। সেদিন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি হওয়ার কথা। বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা এখন অনেকটাই স্থিতিশীল। তাকে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে। তবে আদালতে গিয়ে খালেদাকে দেখে এসে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, তিনি এখনও ‘দারুণ অসুস্থ’। জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় কারাদ- হলে গত ৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে নাজিমুদ্দিন রোডের পরিত্যক্ত এই কারাগারেই রাখা হয়েছিল। চিকিৎসার জন্য উচ্চ আদালতের নির্দেশে গত ৬ অক্টোবর তাকে কারাগার থেকে নেওয়া হয় বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে। তিনি হাসপাতালে থাকা অবস্থায় ২৯ অক্টোবর কারাগারের ভেতরে বসানো জজ আদালতের অস্থায়ী এজলাস থেকেই জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট মামলার রায় আসে, সেখানে তাকে সাত বছরের কারাদ- দেওয়া হয়। পরদিন হাই কোর্টে জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার আপিল রায়ে তার সাজা পাঁচ বছর থেকে বাড়িয়ে ১০ বছর করা হয়। এ দুই মামলার রায় আসার পর জরুরি অবস্থার সময় দায়ের করা নাইকে দুর্নীতি মামলার শুনানি শেষ করতে উদ্যোগী হয় সরকার। এ দুই মামলার রায় আসার পর জরুরি অবস্থার সময় দায়ের করা নাইকে দুর্নীতি মামলার শুনানি শেষ করতে উদ্যোগী হয় সরকার। এদিকে, এতদিন বকশীবাজারে কারা অধিদপ্তরের প্যারেড মাঠে স্থাপিত অস্থায়ী এজলাসে বসে ঢাকার ৯ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মাহমুদুল কবির নাইকো দুর্নীতি মামলার কার্যক্রম পরিচালনা করছিলেন। কিন্তু খালেদা জিয়াকে হাজির করতে না পারায় এবং অপর আসামি মওদুদ আহমদের বার বার সময়ের আবেদনে গত ডিসেম্বর থেকে এ মামলা অভিযোগ গঠনের শুনানি পর্যায়ে আটকে ছিল। এর মধ্যেই এ মামলার কার্যক্রম স্থানান্তরের নির্দেশ দিয়ে গত বুধবার একটি আদেশ জারি করে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আইন ও বিচার বিভাগ। যুগ্ম সচিব (প্রশাসন) বিকাশ কুমার সাহা স্বাক্ষরিত ওই প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, নিরাপত্তাজনিত কারণে এ মামলার বিচার কার্যক্রম পরিচালনা করিবার জন্য ঢাকা মহানগরের ১২৫ নাজিমুদ্দিন রোডে অবস্থিত পুরাতন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের প্রশাসনিক ভবনের কক্ষ নম্বর ০৭ কে অস্থায়ী আদালত হিসেবে ঘোষণা করা হল। সরকার আদালতের এজলাস স্থানান্তরের আদেশ জারির পর নাইকো মামলার প্রধান আসামি খালেদা জিয়াকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল থেকে কারাগারে নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি শুরু হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল থেকে শাহবাগে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল এবং নাজিমুদ্দিন রোডে কারাগার এলাকায় নেওয়া হয় ব্যাপক নিরাপত্তা। বেলা ১১টা ২৫ মিনিটে পুলিশের একটি কালো এসইউভি বঙ্গবন্ধু মেডিকেল থেকে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদাকে নিয়ে পুরান ঢাকায় কারাগারের পথে রওনা হয়। ১৫ মিনিটের মাথায় গাড়িটি কারাভবনের মূল ফটক দিয়ে ভেতরে প্রবেশ করে। আর খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত জিনিসপত্র সকালেই একটি গাড়িতে করে হাসপাতাল থেকে কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয় বলে একজন কারা কর্মকর্তা জানান। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আবদুল্লাহ আল হারুন সাংবাদিকদের বলেন, দীর্ঘ এক মাস চিকিৎসা শেষে উনি (খালেদা জিয়া) আজকে (গতকাল বৃহস্পতিবার) ১১টা ৩০ মিনিটে ওঁর নিজ আবাসস্থলে ফিরে গেছেন। ওঁর শারীরিক অবস্থা যথেষ্ট স্থিতিশীল আছে এবং আমরা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে চেষ্টা করেছি, উনাকে চিকিৎসা সহায়তা দেওয়ার জন্য। পরিচালক বলেন, কারা কর্তৃপক্ষ প্রয়োজন মনে করলে এবং সহায়তা চাইলে বঙ্গবন্ধু মেডিকেলের চিকিৎসক দল কারাগারে গিয়ে তাকে চিকিৎসা দিয়ে আসবে। নাইকে দুর্নীতি মামলা: ক্ষমতার অপব্যবহার করে তিনটি গ্যাসক্ষেত্র পরিত্যক্ত দেখিয়ে কানাডীয় কোম্পানি নাইকোর হাতে তুলে দিয়ে রাষ্ট্রের প্রায় ১৩ হাজার ৭৭৭ কোটি টাকার ক্ষতি করার অভিযোগে মামলাটি করা হয়। ২০০৭ সালের ৯ ডিসেম্বর বিরুদ্ধে তেজগাঁও থানায় মামলাটি দায়ের করে দুদক। তদন্তের পর ২০০৮ সালের ৫ মে খালেদা জিয়াসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা পড়ে। সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া ছাড়া মামলার অপর আসামিরা হলেন- সাবেক মন্ত্রী মওদুদ আহমদ, সাবেক প্রতিমন্ত্রী এ কে এম মোশাররফ হোসেন, সাবেক মুখ্য সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী, সাবেক সচিব খন্দকার শহীদুল ইসলাম, সাবেক জ্যেষ্ঠ সহকারী সচিব সি এম ইউছুফ হোসাইন, বাপেক্সের সাবেক মহাব্যবস্থাপক মীর ময়নুল হক, বাপেক্সের সাবেক সচিব মো. শফিউর রহমান, ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিন আল মামুন, ঢাকা ক্লাবের সাবেক সভাপতি সেলিম ভূঁইয়া এবং নাইকোর দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক ভাইস প্রেসিডেন্ট কাশেম শরীফ।

০৯-১১-২০১৮

09-11-2018

 

পড়া হয়েছে 0 বার

আপনার মতামত জানান...

আপনার মতামত জানানোর জন্য ধন্যবাদ

সোস্যাল নেটওয়ার্ক

খবরের ভিডিও

আজকের রাশিফল

ভাগ্যলক্ষ্মী আজ আপনার সহায় হবে। কাজকর্মে সুফল পাবেন। পরিবারের লোকদের সাথে কোথাও বেড়াতে যেতে পারেন। সময় ভালো যাবে।

আপনার গ্রহ পরিস্থিতি আজ অনুকূল হয়ে পড়বে। দুর্যোগের মেঘ সরে গিয়ে নতুন সূর্য উদয় হবে। সার্বিক সময় ভালোভাবে যাবে।।

প্রেমিক-প্রেমিকাদের জন্য দিনটি বিশেষ শুভ। প্রেমিক-প্রেমিকদের মধুর মিলন হবে। আপনার দাম্পত্য দিকও ভালো যাবে। সময় ভালো যাবে।

এমন কোনো ঘটনা ঘটতে পারে যার ফলে বসের বকুনি খেতে হচ্ছে। ব্যবসা-বাণিজ্যে লোকসান হতে পারে। সময় আপনার অনুকূলে নেই।

পথ চলতে বা দূরের যাত্রায় সতর্ক থাকুন। কোনো ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। আপনার সব দু’নম্বরী কাজ আপাতত বন্ধ রাখুন। সময় শুভ নয়।

আপনার সামনে সমস্যা আসবে ঠিকই। তবে আপনি বুদ্ধিমত্তার সাথে সব প্রতিকূল পরিস্থিতি মোকাবেলা করে নেবেন। সময় ভালো যাবে।

ব্যবসায়ীদের জন্য আজকের দিনটি বিশেষভাবে শুভ। আপনার ব্যবসা-বাণিজ্য ফুলে-ফেঁপে উঠবে। আপনি নানা সূত্র থেকে টাকা পয়সা পাবেন।

কোনো টাকা আটকে গিয়েছিল বা কোনো আটকে থাকা বিল আজ পেতে পারেন। কাজকর্মে সর্বাত্মক সুফল আশা করতে পারেন।

আজ আপনার গ্রহ পরিস্থিতি প্রতিকূল হয়ে পড়বে। শোকগ্রস্ত হওয়ার মতো কোনো ঘটনা ঘটতে পারে। টাকা-পয়সার টানাটানি চলতে থাকবে।

কর্ম ক্ষেত্রে আপনার কারণে বড় কোনো অর্ডার আসতে পারে। ফলে বস আপনার প্রতি সদয় হবে। ভালো কোনো বদলি বা পুরস্কার পেতে পারেন।

শত্রু এবং বিরোধীদের তৎপরতা বেড়ে যেতে পারে। কিন্তু ভয়ের কিছু নেই। তারা আপনার কোনো ক্ষতি করতে পারবে না। সময় মিশ্র সম্ভাবনাময়।

দাম্পত্য সুখ শান্তি প্রতিষ্ঠায় জীবন সাথীর মতামতকে গুরুত্ব দিন। নইলে অশান্তি দেখা দেবে। রাগ ক্ষোভ জেদ পরিহার করার চেষ্টা করুন।

অনলাইন জরিপ

দুদক চেয়ারম্যান বলেছেন, দুর্নীতির মাধ্যমে অর্জিত অর্থ জঙ্গিবাদের পেছনে ব্যয় হচ্ছে। আপনিও কি তা-ই মনে করেন?
  • Votes: (0%)
  • Votes: (0%)
  • Votes: (0%)
Total Votes:
First Vote:
Last Vote:

হাট-বাজার

আঠারো মাইল পশুর হাট - ডুমুরিয়া, খুলনা, বাংলাদেশ

বিস্তারিত দেখুন

পুরনো খবর

প্রধান সম্পাদক : আতিয়ার পারভেজ || সম্পাদক ও প্রকাশক : মনোয়ারা জাহান || ব্যবস্থাপনা সম্পাদক : মো: শাহীন ইসলাম সাঈদ।
বার্তা, সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ২৫, স্যার ইকবাল রোড, পিকচার প্যালেস মোড়, গোল্ডেন কিং ভবন, খুলনা।
সম্পাদক কর্তৃক দেশ বাংলা প্রিন্টার্স, ৫৮, সিমেট্রি রোড, খুলনা হতে মুদ্রিত ও ১০০, খানজাহান আলী রোড থেকে প্রকাশিত।
যোগাযোগঃ সম্পাদক : ০১৭৫৫-২২৪৪০০, বার্তা কক্ষ : ০১৭৮৭-০৫৫৫৫৫, বিজ্ঞাপন : ০১৭৫৫-১১১৮৮৮
ইমেইল : newsamarekush@gmail.com || ওয়েব: amarekush.com